প্রতি গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টে দেখা যায় বিভিন্ন সাংবাদিক বা ইউটিউবারর মানুষকে হেনস্থা করার জন্য উদগ্রীব হয়ে থাকে। তাদের থেকে বাঁচতে আমি এই বিষয়ে কিছু প্রশ্ন উত্তর তৈরি করেছি। আজকের বিষয় পহেল বৈশাখ।

পহেলা বৈশাখের প্রশ্নমালাঃ

প্রশ্নঃ বাংলা নববর্ষ প্রবর্তন করেন কে?

উত্তরঃ মুঘল সম্রাট আকবর। এটা কার্যকরণ শুরু হয় ইংরেজী ১৫৫৬ সালের ৫ই নভেম্বর, সম্রাট আকবরের সিংহাসন আরোহনের সময়কাল থেকে।

প্রশ্নঃ আজ বাংলা নববর্ষের কত সাল? ( এটা প্রথম প্রশ্ন আসবে, এখানে দিলাম যেন আগের টা থেকে হিসাব করে বের করতে পারেন।)

উত্তরঃ অবশ্যই সালটা মনে রাখবেন অথবা প্রথম প্রশ্ন থেকে হিসাব করে বের করে নেবেন।

প্রশ্নঃ কেন প্রবর্তন করা হয়?

উত্তরঃ খাজনা আদায়ের জন্য। প্রথমে এটা “ফসলি সন” হিসেবে চালু থাকলেও পরে তা “বঙ্গাব্দ” নামকরণ করা হয়।

প্রশ্নঃ বৈশাখ মাস কতদিন?

উত্তরঃ ৩১ দিন।

প্রশ্নঃ ৩১ দিনে মাস আছে কয়টি?

উত্তরঃ প্রথম ৫ মাস, বাকিগুলো ৩০ দিনে।

প্রশ্নঃ বাংলা মাস কয়টি ও কি কি?

উত্তরঃ ১২ টি। বৈশাখ, জ্যৈষ্ঠ, আষাঢ়, শ্রাবণ, ভাদ্র, আশ্বিন, কার্তিক, অগ্রহায়ণ, পৌষ, মাঘ, ফাল্গুন এবং চৈত্র।

প্রশ্নঃ ঋতু কয়টি ও কি কি?

উত্তরঃ ৬ টি। গ্রীষ্ম, বর্ষা, শরৎ, হেমন্ত, শীত এবং বসন্ত। প্রতি ২ মাসে এক ঋতু।

প্রশ্নঃ জাতীয় মাছ কি?

উত্তরঃ ইলিশ।

প্রশ্নঃ পান্তা ইলিশের প্রচলন শুরু হয় কবে?

উত্তরঃ ইংরেজী ১৯৮৩ সালে। দৈনিক জনকণ্ঠের সাংবাদিক বোরহান আহমেদ প্রথম রমনা বটমূলে পান্তা-ইলিশ খাবার প্রস্তাব করেন এবং তার পর থেকেই পান্তা ইলিশের প্রচলন।

প্রশ্নঃ “এসো হে বৈশাখ এসো এসো” – গানটির রচয়িতা কে?

উত্তরঃ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

প্রশ্নঃ বাংলা নববর্ষ কখন থেকে শুরু হয়?

উত্তরঃ পূর্বে সূর্যোদয়ের সাথে নতুন বছরের হিসাব করা হত। কিন্তু আন্তর্জাতিক ঘড়ির সাথে সামঞ্জস্য রাখতে বাংলা ১৪০২ সালের ১লা বৈশাখে বাংলা একাডেমী পূর্বের নিয়ম বাতিল করে রাত ১২ টার পর থেকে নতুন বছর গণ্নার নিয়ম চালু করেন।